ফুফাতো বোনকে অপহরণপূর্বক ধর্ষণ মামলার অন্যতম প্রধান সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩

বহুল আলোচিত রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় ফুফাতো বোনকে অপহরণপূর্বক ধর্ষণ মামলার অন্যতম প্রধান সহযোগী ইলিয়াস মাতবর (৪০)’কে ঢাকা মহানগরীর দারুস-সালাম থানাধীন এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন, র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে বিভিন্ন ধরণের অপরাধ নির্মূলের লক্ষ্যে অত্যন্ত আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নির্মূল ও মাদকবিরোধী অভিযানের পাশাপাশি খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজি, চুরি, কিশোর গ্যাং, ডাকাতি ও ছিনতাই চক্রের সাথে জড়িত বিভিন্ন সংঘবদ্ধ ও সক্রিয় সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে র‌্যাবের জোরালো তৎপরতা অব্যাহত আছে। এছাড়াও বিভিন্ন হত্যাকান্ডের দীর্ঘদিন যাবৎ আত্মগোপনে থাকা বেশ কয়েকটি চাঞ্চল্যকর ও ক্লু-লেস হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনপূর্বক হত্যাকারীদেরকে গ্রেফতার করে দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে র‌্যাব সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৩ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় ফুফাতো বোনকে অপহরণ পূর্বক ধর্ষণ মামলায় প্রধান সহযোগী ১। ইলিয়াস মাতবর (৪০), পিতা-মৃত করিম মাদবর, সাং-সেনেরচর দক্ষিনকান্দি, থানা-জাজিরা, জেলা-শরীয়তপুরকে ঢাকা মহানগরীর দারুস-সালাম থানাধীন এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ও মামলার সূত্রে জানা যায় যে, মামলার বাদী রুমা বেগম ও তার কন্যা সোনালী আক্তার আইরিন (১৬) দীর্ঘদিন যাবৎ রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় বসবাস করত। একই এলাকায় তার ভাইপো মোঃ রিয়াজ মাদবর @মামুন (২২) বসবাস করত। রুমা বেগম এর কন্যা ভিকটিম সোনালী আক্তার আইরিন ডেমরা থানাধীন শান্তিবাগস্থ রেনেসা একাডেমীতে ৯ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করত। সে স্কুলে যাওয়ার পথে তার মামাতো ভাই মোঃ রিয়াজ মাদবর বারবার প্রেমের প্রস্তাব দিত এবং মোবাইলে কল দিয়ে ডিস্টার্ব করত। বিষয়টি ভিকটিম সোনালী তার মা রুমা বেগমকে জানালে রুমা বেগম তার ভাইপো রিয়াজ মাদবরকে ডিস্টার্ব না করার জন্য বলে। এতে করে রিয়াজ ক্ষিপ্ত হয়ে তাদেরকে দেখে নেবে বলে হুমকি প্রদান করে। পরবর্তীতে সে এবং ধৃত ইলিয়াস মাতবর গত ২৩/০৯/২০১৯ তারিখ সকালে ভিকটিম সোনালীকে স্কুলের রাস্তায় একা পেয়ে ফুসলিয়ে জোরপূর্বক অপহরন করে দারুস-সালাম এলাকায় নিয়ে যায়। দীর্ঘসময় ভিকটিম বাড়িতে না যাওয়ায় তার মা রুমা বেগম বিভিন্ন স্থানে তাকে খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে লোকমুখে জানতে পারে তার মেয়ে সোনালীকে শান্তিবাগ মসজিদের সামনে রাস্তার উপর থেকে রিয়াজ মাদবর ও আরও কয়েকজন ব্যক্তি মিলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে ভিকটিমের মা রুমা বাদী হয়ে ডেমরা থানায় রিয়াজ মাদবর এবং ১/২ জন ব্যক্তিকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্ত শেষে জানা যায় যে, রিয়াজ মাদবর ভিকটিম সোনালীকে অপহরণ করে এবং তার অপহরণের সকল কাজে ধৃত ইলিয়াস মাদবর সহযোগিতা করে। ভিকটিমের মেডিকেল পরীক্ষার রিপোর্ট ও ভিকটিমের জবানবন্দিতে জানা যায় রিয়াজ ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক একাধিক বার ধর্ষণ করে। আর এ কাজে ধৃত ইলিয়াস মাতবর সার্বিকভাবে সহযোগিতা করে। অভিযুক্ত হওয়ার পর থেকেই ধৃত ইলিয়াস এলাকা পরিবর্তন করে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পলাতক জীবন যাপন করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।
ঢাকা ,মঙ্গলবার ১৯ র্মাচ এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ আপডেট



» স্বর্ণের দাম এক হাজার ২৮৪ টাকা কমিয়ে নতুন দাম নির্ধারণ

» মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত

» উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল।। কলাপাড়ায় প্রস্তুত রয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র ও মুজিব কেল্লা

» উত্তর বাড্ডা জামতলা পানির পাম্প এলাকায় এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

» রাজধানীর বাড্ডা বটতলা এলাকায় নির্মাণাধীন ভবনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক রডমিস্ত্রীর মৃত্যু

» কুয়াকাটার সৈকতে আবারও ভেসে এসেছে মৃত ডলফিন

» বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় কিছু সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি তৎপর

» কালিহাতীতে পাইলিংবাহী একটি লোবেটের পেছনে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় চালক ও হেলপার নিহত

» ১০ তলা বঙ্গবাজার পাইকারি মার্কেটসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

» জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী আজ

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত নিউজপোর্টাল গভঃ রেজিঃ নং ১১৩

আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফুফাতো বোনকে অপহরণপূর্বক ধর্ষণ মামলার অন্যতম প্রধান সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩




বহুল আলোচিত রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় ফুফাতো বোনকে অপহরণপূর্বক ধর্ষণ মামলার অন্যতম প্রধান সহযোগী ইলিয়াস মাতবর (৪০)’কে ঢাকা মহানগরীর দারুস-সালাম থানাধীন এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন, র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে বিভিন্ন ধরণের অপরাধ নির্মূলের লক্ষ্যে অত্যন্ত আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নির্মূল ও মাদকবিরোধী অভিযানের পাশাপাশি খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজি, চুরি, কিশোর গ্যাং, ডাকাতি ও ছিনতাই চক্রের সাথে জড়িত বিভিন্ন সংঘবদ্ধ ও সক্রিয় সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে র‌্যাবের জোরালো তৎপরতা অব্যাহত আছে। এছাড়াও বিভিন্ন হত্যাকান্ডের দীর্ঘদিন যাবৎ আত্মগোপনে থাকা বেশ কয়েকটি চাঞ্চল্যকর ও ক্লু-লেস হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনপূর্বক হত্যাকারীদেরকে গ্রেফতার করে দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে র‌্যাব সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৩ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় ফুফাতো বোনকে অপহরণ পূর্বক ধর্ষণ মামলায় প্রধান সহযোগী ১। ইলিয়াস মাতবর (৪০), পিতা-মৃত করিম মাদবর, সাং-সেনেরচর দক্ষিনকান্দি, থানা-জাজিরা, জেলা-শরীয়তপুরকে ঢাকা মহানগরীর দারুস-সালাম থানাধীন এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ও মামলার সূত্রে জানা যায় যে, মামলার বাদী রুমা বেগম ও তার কন্যা সোনালী আক্তার আইরিন (১৬) দীর্ঘদিন যাবৎ রাজধানীর ডেমরা থানাধীন এলাকায় বসবাস করত। একই এলাকায় তার ভাইপো মোঃ রিয়াজ মাদবর @মামুন (২২) বসবাস করত। রুমা বেগম এর কন্যা ভিকটিম সোনালী আক্তার আইরিন ডেমরা থানাধীন শান্তিবাগস্থ রেনেসা একাডেমীতে ৯ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করত। সে স্কুলে যাওয়ার পথে তার মামাতো ভাই মোঃ রিয়াজ মাদবর বারবার প্রেমের প্রস্তাব দিত এবং মোবাইলে কল দিয়ে ডিস্টার্ব করত। বিষয়টি ভিকটিম সোনালী তার মা রুমা বেগমকে জানালে রুমা বেগম তার ভাইপো রিয়াজ মাদবরকে ডিস্টার্ব না করার জন্য বলে। এতে করে রিয়াজ ক্ষিপ্ত হয়ে তাদেরকে দেখে নেবে বলে হুমকি প্রদান করে। পরবর্তীতে সে এবং ধৃত ইলিয়াস মাতবর গত ২৩/০৯/২০১৯ তারিখ সকালে ভিকটিম সোনালীকে স্কুলের রাস্তায় একা পেয়ে ফুসলিয়ে জোরপূর্বক অপহরন করে দারুস-সালাম এলাকায় নিয়ে যায়। দীর্ঘসময় ভিকটিম বাড়িতে না যাওয়ায় তার মা রুমা বেগম বিভিন্ন স্থানে তাকে খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে লোকমুখে জানতে পারে তার মেয়ে সোনালীকে শান্তিবাগ মসজিদের সামনে রাস্তার উপর থেকে রিয়াজ মাদবর ও আরও কয়েকজন ব্যক্তি মিলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে ভিকটিমের মা রুমা বাদী হয়ে ডেমরা থানায় রিয়াজ মাদবর এবং ১/২ জন ব্যক্তিকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্ত শেষে জানা যায় যে, রিয়াজ মাদবর ভিকটিম সোনালীকে অপহরণ করে এবং তার অপহরণের সকল কাজে ধৃত ইলিয়াস মাদবর সহযোগিতা করে। ভিকটিমের মেডিকেল পরীক্ষার রিপোর্ট ও ভিকটিমের জবানবন্দিতে জানা যায় রিয়াজ ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক একাধিক বার ধর্ষণ করে। আর এ কাজে ধৃত ইলিয়াস মাতবর সার্বিকভাবে সহযোগিতা করে। অভিযুক্ত হওয়ার পর থেকেই ধৃত ইলিয়াস এলাকা পরিবর্তন করে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পলাতক জীবন যাপন করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।
ঢাকা ,মঙ্গলবার ১৯ র্মাচ এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা প্রগতি স্বরণী বাড্ডা ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com