পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ রানে হেরেছে বাংলাদশের যুবারা

আইসিসি অনূর্ধ্ব–১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে অঘোষিত কোয়ার্টার ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ রানে হেরেছে বাংলাদশের যুবারা।৩৮.১ ওভারের মধ্যে জিতলে পেত সেমিফাইনালের টিকিট। ১৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে সেমিফাইনাল থেকে আর ৬ রান দূরে ছিল তারা। আক্ষেপের গল্প লিখে ৩৫.৫ ওভারে ১৫০ রানে অলআউট হয়েছে যুবারা। ৫ রানে জিতে সেমিতে উঠেছে পাকিস্তান।বেনোনির উইলোমোর পার্কের কঠিন উইকেটে রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ওভারে ১৭ রান তুলে নেয় টাইগার যুবারা। তৃতীয় ওভারে বিদায় নেন মারমুখী ওপেনার জিশান আলম। ১২ বলে ১৯ রান করেন তিনি। ৪ রান করা আশিকুর রহমান শিবলি আউট হন দলীয় ৩৬ রানে। দুই ওপেনারকেই প্যাভিলিয়নে পাঠান উবাইদ শাহ।

স্কোর বোর্ডে আর ১১ রান যোগ হওয়ার পর বিদায় নেন মো. রিজওয়ান। ৩০ বলে ২০ রান করেন তিনি। এরপর পাকিস্তানের পেস তোপের সামনে আরিফুল ইসলাম ও আহরার আমিন স্থায়ী হওয়ার চেষ্টা করেন। বাজে বল পেলেই মারতে ভুল করেননি তারা। উবাইদ শাহর বলে হারুন আরশাদের দারুণ এক ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় আহরার আমিনকে। ২৩ বলে করেন ১১ রান তিনি। আরিফুল ২০ বলে ১৪ রান করে আউট হন আলি রেজার ওভারে।
শেখ পারভেজ জীবন ২ রানে আউট হওয়ার পর শিহাব জেমস ও অধিনায়ক মাহফুজুর রহমান রাব্বি ইনিংসের হাল ধরেন। দুজনে গড়েন ৪৩ রানের জুটি। ২৬ রানে শিহাবের বিদায়ে ভাঙে তাদের জুটি। রাব্বি করেন ১৩ রান। তখনই বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। ইকবাল হোসেন ইমন আউট হন শূন্য রানে। এরপর রোহানাতদৌলা বর্ষণের ব্যাটে জয়ের কাছে চলে যায় যুবারা। কিন্তু অন্যপ্রান্তে মারুফ মৃধা বোল্ড হওয়ায় শেষ হয় বাংলাদেশের স্বপ্ন। বর্ষণ ২৪ বলে ২১ রান করে অপরাজিত থাকেন। মারুফ করেন ৪ রান।

এর আগে ব্যাট করে ৪০.৪ ওভারে ১৫৫ রানে গুঁড়িয়ে যায় পাকিস্তান। এদিন শুরুটা অবশ্য খারাপ ছিল না পাকিস্তানের। ওপেনিং জুটিতে ৮ ওভারের মধ্যে তারা তুলে নেয় ৩৪ রান। নবম ওভারে আক্রমণে এসে বাংলাদেশকে লড়াইয়ে ফেরান বর্ষণ। তার সুইং আর গতিতে পরাস্ত হয়ে বোল্ড হন শামিল হোসেন। ৩১ বলে ৩ চারের মারে ১৯ রান আসে তার ব্যাট থেকে। বর্ষণ শুধু এদিন ব্রেকথ্রু-ই এনে দেননি, ভেঙে দেন পাকিস্তানের ইনিংসের খুঁটি। ৬ বলে ৬ রান করে তার বলে কট বিহাইন্ড হন ওয়ান ডাউনে নামা আজান আওয়াইস।

২১ বলে ৯ রান করে সাদ বাইগ রানআউট হলে দলীয় ৬৬ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় পাকিস্তান। আক্রমণে এসে আরও চাপ তৈরি করেন পারভেজ জীবন। তার ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়ে ৬৭ বলে ২৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন একপ্রান্ত আগলে রাখা পাক ওপেনার শাহজাইব খান। ভাঙা কোমর সোজা করার আগে বর্ষণের গোলায় বিদ্ধ হন আহমেদ হাসান। আর জীবনের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হন হারুন আরশাদ। আহমেদ ১১ আর আরশাদ ৭ রান করে আউট হন। মাত্র ৮৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে একপ্রকার ছিটকে পড়ে পাকিস্তান।সপ্তম উইকেটে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন আরাফাত মিনহাজ ও আলী আসফান্দ। দুজন মিলে জুটি গড়ে দলকে পৌঁছে দেন ১৩২ রানে। অনেক চেষ্টার পর আসফান্দকে নিজের শিকারে পরিণত করেন জীবন। ২৯ বলে ১৯ রান করে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। এরপর ক্রিজে নামা উবাইদ শাহ ৬ বলে ১ রান তুলতেই স্টাম্প তুলে নেন জীবন। বর্ষণ এসে ফেরান ১১ বলে ৪ রান করা মোহাম্মদ জিশানকে।

তবে তখনও একপ্রান্ত আগলে পাকিস্তানকে লড়াইয়ে টিকিয়ে রেখেছিলেন মিনহাজ। শেষ পর্যন্ত ৪১তম ওভারে তাকে ফিরিয়ে পাকিস্তানের ইনিংসের ইতি টানেন টাইগার অধিনায়ক মাহফুজুর রহমান রাব্বি।
ক্রীড়া ডেস্ক,শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারি এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ আপডেট



» স্বর্ণের দাম এক হাজার ২৮৪ টাকা কমিয়ে নতুন দাম নির্ধারণ

» মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত

» উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল।। কলাপাড়ায় প্রস্তুত রয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র ও মুজিব কেল্লা

» উত্তর বাড্ডা জামতলা পানির পাম্প এলাকায় এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

» রাজধানীর বাড্ডা বটতলা এলাকায় নির্মাণাধীন ভবনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক রডমিস্ত্রীর মৃত্যু

» কুয়াকাটার সৈকতে আবারও ভেসে এসেছে মৃত ডলফিন

» বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় কিছু সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি তৎপর

» কালিহাতীতে পাইলিংবাহী একটি লোবেটের পেছনে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় চালক ও হেলপার নিহত

» ১০ তলা বঙ্গবাজার পাইকারি মার্কেটসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

» জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী আজ

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত নিউজপোর্টাল গভঃ রেজিঃ নং ১১৩

আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ রানে হেরেছে বাংলাদশের যুবারা




আইসিসি অনূর্ধ্ব–১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে অঘোষিত কোয়ার্টার ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ রানে হেরেছে বাংলাদশের যুবারা।৩৮.১ ওভারের মধ্যে জিতলে পেত সেমিফাইনালের টিকিট। ১৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে সেমিফাইনাল থেকে আর ৬ রান দূরে ছিল তারা। আক্ষেপের গল্প লিখে ৩৫.৫ ওভারে ১৫০ রানে অলআউট হয়েছে যুবারা। ৫ রানে জিতে সেমিতে উঠেছে পাকিস্তান।বেনোনির উইলোমোর পার্কের কঠিন উইকেটে রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ওভারে ১৭ রান তুলে নেয় টাইগার যুবারা। তৃতীয় ওভারে বিদায় নেন মারমুখী ওপেনার জিশান আলম। ১২ বলে ১৯ রান করেন তিনি। ৪ রান করা আশিকুর রহমান শিবলি আউট হন দলীয় ৩৬ রানে। দুই ওপেনারকেই প্যাভিলিয়নে পাঠান উবাইদ শাহ।

স্কোর বোর্ডে আর ১১ রান যোগ হওয়ার পর বিদায় নেন মো. রিজওয়ান। ৩০ বলে ২০ রান করেন তিনি। এরপর পাকিস্তানের পেস তোপের সামনে আরিফুল ইসলাম ও আহরার আমিন স্থায়ী হওয়ার চেষ্টা করেন। বাজে বল পেলেই মারতে ভুল করেননি তারা। উবাইদ শাহর বলে হারুন আরশাদের দারুণ এক ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় আহরার আমিনকে। ২৩ বলে করেন ১১ রান তিনি। আরিফুল ২০ বলে ১৪ রান করে আউট হন আলি রেজার ওভারে।
শেখ পারভেজ জীবন ২ রানে আউট হওয়ার পর শিহাব জেমস ও অধিনায়ক মাহফুজুর রহমান রাব্বি ইনিংসের হাল ধরেন। দুজনে গড়েন ৪৩ রানের জুটি। ২৬ রানে শিহাবের বিদায়ে ভাঙে তাদের জুটি। রাব্বি করেন ১৩ রান। তখনই বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। ইকবাল হোসেন ইমন আউট হন শূন্য রানে। এরপর রোহানাতদৌলা বর্ষণের ব্যাটে জয়ের কাছে চলে যায় যুবারা। কিন্তু অন্যপ্রান্তে মারুফ মৃধা বোল্ড হওয়ায় শেষ হয় বাংলাদেশের স্বপ্ন। বর্ষণ ২৪ বলে ২১ রান করে অপরাজিত থাকেন। মারুফ করেন ৪ রান।

এর আগে ব্যাট করে ৪০.৪ ওভারে ১৫৫ রানে গুঁড়িয়ে যায় পাকিস্তান। এদিন শুরুটা অবশ্য খারাপ ছিল না পাকিস্তানের। ওপেনিং জুটিতে ৮ ওভারের মধ্যে তারা তুলে নেয় ৩৪ রান। নবম ওভারে আক্রমণে এসে বাংলাদেশকে লড়াইয়ে ফেরান বর্ষণ। তার সুইং আর গতিতে পরাস্ত হয়ে বোল্ড হন শামিল হোসেন। ৩১ বলে ৩ চারের মারে ১৯ রান আসে তার ব্যাট থেকে। বর্ষণ শুধু এদিন ব্রেকথ্রু-ই এনে দেননি, ভেঙে দেন পাকিস্তানের ইনিংসের খুঁটি। ৬ বলে ৬ রান করে তার বলে কট বিহাইন্ড হন ওয়ান ডাউনে নামা আজান আওয়াইস।

২১ বলে ৯ রান করে সাদ বাইগ রানআউট হলে দলীয় ৬৬ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় পাকিস্তান। আক্রমণে এসে আরও চাপ তৈরি করেন পারভেজ জীবন। তার ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়ে ৬৭ বলে ২৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন একপ্রান্ত আগলে রাখা পাক ওপেনার শাহজাইব খান। ভাঙা কোমর সোজা করার আগে বর্ষণের গোলায় বিদ্ধ হন আহমেদ হাসান। আর জীবনের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হন হারুন আরশাদ। আহমেদ ১১ আর আরশাদ ৭ রান করে আউট হন। মাত্র ৮৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে একপ্রকার ছিটকে পড়ে পাকিস্তান।সপ্তম উইকেটে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন আরাফাত মিনহাজ ও আলী আসফান্দ। দুজন মিলে জুটি গড়ে দলকে পৌঁছে দেন ১৩২ রানে। অনেক চেষ্টার পর আসফান্দকে নিজের শিকারে পরিণত করেন জীবন। ২৯ বলে ১৯ রান করে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। এরপর ক্রিজে নামা উবাইদ শাহ ৬ বলে ১ রান তুলতেই স্টাম্প তুলে নেন জীবন। বর্ষণ এসে ফেরান ১১ বলে ৪ রান করা মোহাম্মদ জিশানকে।

তবে তখনও একপ্রান্ত আগলে পাকিস্তানকে লড়াইয়ে টিকিয়ে রেখেছিলেন মিনহাজ। শেষ পর্যন্ত ৪১তম ওভারে তাকে ফিরিয়ে পাকিস্তানের ইনিংসের ইতি টানেন টাইগার অধিনায়ক মাহফুজুর রহমান রাব্বি।
ক্রীড়া ডেস্ক,শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারি এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা প্রগতি স্বরণী বাড্ডা ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com