নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেল বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সিরিজের শুরুটা ভালো হলো বাংলাদেশের। প্রস্তুতি ম্যাচে লাল-সবুজের দল স্বাগতিকদের হারিয়েছে। ম্যাচটিতে ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত পারফম্যান্স করেছেন রিশাদ হোসেন।বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) ভোর ৪টায় সিরিজের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড একাদশ। ম্যাচটিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৯.৫ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ৪৯.২ ওভারে ৩০৮ রান তুলতেই শেষ হয় কিউইদের ইনিংস। তাতে ২৬ রানে জয় পায় বাংলাদেশ। এই জয়ের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন লেগস্পিনার রিশাদ। ব্যাট হাতে তিনি ৫৪ বলে ৮৭ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। যেখানে ছিল ১১টি চার ও ৪টি ছক্কার মার। আর বল হাতে তুলে নেন ৩ উইকেট। তাতে বাংলাদেশ বড় সংগ্রহের পাশাপাশি জয়ও তুলে নেয়।বার্ট সাটক্লিফ ওভাল স্টেডিয়ামে এদিন একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে আগে ব্যাট করে লিটন দাসের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ। গা গরমের ম্যাচ খেলেননি অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত, সহ অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ। ছিলেন না মুশফিকুর রহিমও।

আগে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশকে দারুণ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় ও তানজিদ হাসান তামিম। শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক ব্যাটিং করেন আনামুল। দারুণ সব শট খেলে চারটি চার ও একটি ছক্কাও মারেন ডানহাতি এই ওপেনার। দুর্দান্ত শুরু করলেও হাফ সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি বিজয়ের। ফিল্ডের অফ স্টাম্পে পড়ে ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিতে ড্রাইভ করেছিলেন তিনি। তবে বলের লাইন মিস করায় ২৬ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলে ফিরতে হয় তাকে।

বিজয় ফেরার পর দ্রুত রান তুলতে থাকেন তানজিদ। তাকে দারুণভাবে সঙ্গ দিয়েছেন তিনে নামা সৌম্য। দু’জনে মিলে গড়েন পঞ্চাশ রানের জুটি। নিউজিল্যান্ড একাদশের দুই পেসারের বিপক্ষে শুরুতে খানিকটা ভুগছিলেন তানজিদ। তবে সময় যত গড়িয়েছে ব্যাটিংয়ে ততই ছন্দ খুঁজে পেয়েছেন বাঁহাতি এই ওপেনার। সামর্থ্য সিংয়ে লেংথ ডেলিভারিতে লং অফের উপর দিয়ে ছক্কা মেরে ৪০ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন তরুণ এই ওপেনার।

দ্বিতীয় উইকেটে জুটির সেঞ্চুরি করেন তামিম-সৌম্য। তাদের দু’জনের জুটি ভাঙেন নিকিথ পেরেরা। বাঁহাতি এই স্পিনারের ঝুলিয়ে দেয়া ডেলিভারিতে হাঁটু গেড়ে উড়িয়ে মারতে গিয়ে জামাল টডের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৫৮ রানের ইনিংসের খেলা তানজিদ।

নিজের খেলা তৃতীয় বলে পুল করে ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে চার মেরে রানের খাতা খুলেছিলেন সৌম্য সরকার। সেই সঙ্গে কিউই বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে দ্রুত রানও তুলতে থাকেন। দারুণ ব্যাটিংয়ে ৪৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য। তামিমের মতো হাফ সেঞ্চুরির পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সৌম্যও। সামর্থ্য সিংয়ে অফ স্টাম্পের বাইরের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন ৫৬ বলে ৫৯ রানের ইনিংস খেলা বাঁহাতি এই ব্যাটার।

এদিকে পাঁচে নেমে রানের খাতাই খুলতে পারেননি তাওহিদ হৃদয়। দ্রুত তিন উইকেট হারানোর পর লিটন ও আফিফ হোসেন সামনে চ্যালেঞ্জ ছিল জুটি গড়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার। তবে সেটা করতে পারেননি তারা দু’জন। হৃদয়ের মতো এদিন ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন আফিফও। মাত্র ১০ রান করে ফেরেন বাঁহাতি এই ব্যাটার।

১৮৬ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর রিশাদকে সঙ্গে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন লিটন। রিশাদের সাথে গড়েন পঞ্চাশ পেরোনো জুটিও। সাবধানী ব্যাটিংয়ে নিজের হাফ সেঞ্চুরিও তুলে নেন লিটন। জারোড ম্যাকের বলে থার্ডম্যান দিয়ে চার মেরে ৫৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন ডানহাতি এই ব্যাটার। যদিও হাফ সেঞ্চুরি পাওয়ার পরের ওভারেই ফেরেন তিনি। সামর্থ্যের শর্ট লেংথ ডেলিভারিতে লং অন দিয়ে খেলতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন ৫৫ রান করা এই ব্যাটার।

লিটনকে দারুণভাবে সঙ্গ দিয়েছিলেন রিশাদ হোসেন। লিটন ফিরে গেলে দলকে এগিয়ে নেয়ার পুরো দায়িত্ব এসে পড়ে তার কাঁধে। দারুণ ব্যাটিংয়ে সেটা ভালোভাবেই পালন করেছেন ডানহাতি এই ব্যাটার। সামর্থ্য সিংয়ে লেগ স্টাম্পের ওপর করা ডেলিভারিতে পুল করে ছক্কা মাত্র ৩৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন রিশাদ। শেষ পর্যন্ত ১১ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৪ বলে ৮৭ রানের ইনিংস খেলে দলের রান ৩০০ পার করান তিনি। ৪৯.৫ ওভারে ৩৩৪ রান করে অলআউট হয় বাংলাদেশ।

নিউজিল্যান্ড একাদশের পক্ষে সামার্থ সিং ৪ উইকেট নেন। ২ টি করে শিকার জেমস হার্টশর্ন ও জয়ি ফিল্ডের। ১ টি করে উইকেট পান নিকিত পেরেরা ও জ্যারড ম্যাকে।

জবাব দিতে নেমে নিউজিল্যান্ড একাদশ ৫.১ ওভারে ৩২ রান তুলতেই ২ উইকেট হারিয়ে বসে। ১৬.৪ ওভারে ৪র্থ উইকেট যখন হারায়, দলের রান তখন ৮০। ৮০ রানে ৪ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড একাদশকে টেনে তোলে অধিনায়ক ভারত পোপলি ও স্বন্দ্বীপ প্যাটেলের জুটি। ৫ম উইকেটে তাঁরা দুজন যোগ করেন ১৫৬ রান।

ভারত পোপলি আক্ষেপে পোড়েন ৮ রানের। দারুণ খেলতে থাকা ভারত ৯০ বলে ১৩ চারে ৯২ রান করে আফিফ হোসেনের বলে বোল্ড হন। আফিফ ফেরান টাইগারদের জন্য হুমকি হয়ে ওঠা আরেক ব্যাটার স্বন্দ্বীপ প্যাটেলকেও। ৭৭ বলে ১১ চার ও ২ ছয়ে ৮৯ রান করেন তিনি। এই দু’জনের বিদায়ের পর জয়ের কক্ষপথ থেকে ছিটকে যায় নিউজিল্যান্ড একাদশ। শেষমেশ ৪৯.২ ওভারে ৩০৮ রানে অলআউট হয় তারা। বাংলাদেশ ম্যাচ জেতে ২৬ রানের ব্যবধানে।
ক্রীড়া ডেস্ক,বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ আপডেট



» স্বর্ণের দাম এক হাজার ২৮৪ টাকা কমিয়ে নতুন দাম নির্ধারণ

» মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত

» উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল।। কলাপাড়ায় প্রস্তুত রয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র ও মুজিব কেল্লা

» উত্তর বাড্ডা জামতলা পানির পাম্প এলাকায় এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

» রাজধানীর বাড্ডা বটতলা এলাকায় নির্মাণাধীন ভবনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক রডমিস্ত্রীর মৃত্যু

» কুয়াকাটার সৈকতে আবারও ভেসে এসেছে মৃত ডলফিন

» বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় কিছু সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি তৎপর

» কালিহাতীতে পাইলিংবাহী একটি লোবেটের পেছনে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় চালক ও হেলপার নিহত

» ১০ তলা বঙ্গবাজার পাইকারি মার্কেটসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

» জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী আজ

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত নিউজপোর্টাল গভঃ রেজিঃ নং ১১৩

আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেল বাংলাদেশ




নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সিরিজের শুরুটা ভালো হলো বাংলাদেশের। প্রস্তুতি ম্যাচে লাল-সবুজের দল স্বাগতিকদের হারিয়েছে। ম্যাচটিতে ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত পারফম্যান্স করেছেন রিশাদ হোসেন।বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) ভোর ৪টায় সিরিজের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড একাদশ। ম্যাচটিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৯.৫ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ৪৯.২ ওভারে ৩০৮ রান তুলতেই শেষ হয় কিউইদের ইনিংস। তাতে ২৬ রানে জয় পায় বাংলাদেশ। এই জয়ের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন লেগস্পিনার রিশাদ। ব্যাট হাতে তিনি ৫৪ বলে ৮৭ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। যেখানে ছিল ১১টি চার ও ৪টি ছক্কার মার। আর বল হাতে তুলে নেন ৩ উইকেট। তাতে বাংলাদেশ বড় সংগ্রহের পাশাপাশি জয়ও তুলে নেয়।বার্ট সাটক্লিফ ওভাল স্টেডিয়ামে এদিন একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে আগে ব্যাট করে লিটন দাসের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ। গা গরমের ম্যাচ খেলেননি অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত, সহ অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ। ছিলেন না মুশফিকুর রহিমও।

আগে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশকে দারুণ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় ও তানজিদ হাসান তামিম। শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক ব্যাটিং করেন আনামুল। দারুণ সব শট খেলে চারটি চার ও একটি ছক্কাও মারেন ডানহাতি এই ওপেনার। দুর্দান্ত শুরু করলেও হাফ সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি বিজয়ের। ফিল্ডের অফ স্টাম্পে পড়ে ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিতে ড্রাইভ করেছিলেন তিনি। তবে বলের লাইন মিস করায় ২৬ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলে ফিরতে হয় তাকে।

বিজয় ফেরার পর দ্রুত রান তুলতে থাকেন তানজিদ। তাকে দারুণভাবে সঙ্গ দিয়েছেন তিনে নামা সৌম্য। দু’জনে মিলে গড়েন পঞ্চাশ রানের জুটি। নিউজিল্যান্ড একাদশের দুই পেসারের বিপক্ষে শুরুতে খানিকটা ভুগছিলেন তানজিদ। তবে সময় যত গড়িয়েছে ব্যাটিংয়ে ততই ছন্দ খুঁজে পেয়েছেন বাঁহাতি এই ওপেনার। সামর্থ্য সিংয়ে লেংথ ডেলিভারিতে লং অফের উপর দিয়ে ছক্কা মেরে ৪০ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন তরুণ এই ওপেনার।

দ্বিতীয় উইকেটে জুটির সেঞ্চুরি করেন তামিম-সৌম্য। তাদের দু’জনের জুটি ভাঙেন নিকিথ পেরেরা। বাঁহাতি এই স্পিনারের ঝুলিয়ে দেয়া ডেলিভারিতে হাঁটু গেড়ে উড়িয়ে মারতে গিয়ে জামাল টডের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৫৮ রানের ইনিংসের খেলা তানজিদ।

নিজের খেলা তৃতীয় বলে পুল করে ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে চার মেরে রানের খাতা খুলেছিলেন সৌম্য সরকার। সেই সঙ্গে কিউই বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে দ্রুত রানও তুলতে থাকেন। দারুণ ব্যাটিংয়ে ৪৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য। তামিমের মতো হাফ সেঞ্চুরির পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সৌম্যও। সামর্থ্য সিংয়ে অফ স্টাম্পের বাইরের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন ৫৬ বলে ৫৯ রানের ইনিংস খেলা বাঁহাতি এই ব্যাটার।

এদিকে পাঁচে নেমে রানের খাতাই খুলতে পারেননি তাওহিদ হৃদয়। দ্রুত তিন উইকেট হারানোর পর লিটন ও আফিফ হোসেন সামনে চ্যালেঞ্জ ছিল জুটি গড়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার। তবে সেটা করতে পারেননি তারা দু’জন। হৃদয়ের মতো এদিন ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন আফিফও। মাত্র ১০ রান করে ফেরেন বাঁহাতি এই ব্যাটার।

১৮৬ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর রিশাদকে সঙ্গে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন লিটন। রিশাদের সাথে গড়েন পঞ্চাশ পেরোনো জুটিও। সাবধানী ব্যাটিংয়ে নিজের হাফ সেঞ্চুরিও তুলে নেন লিটন। জারোড ম্যাকের বলে থার্ডম্যান দিয়ে চার মেরে ৫৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন ডানহাতি এই ব্যাটার। যদিও হাফ সেঞ্চুরি পাওয়ার পরের ওভারেই ফেরেন তিনি। সামর্থ্যের শর্ট লেংথ ডেলিভারিতে লং অন দিয়ে খেলতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন ৫৫ রান করা এই ব্যাটার।

লিটনকে দারুণভাবে সঙ্গ দিয়েছিলেন রিশাদ হোসেন। লিটন ফিরে গেলে দলকে এগিয়ে নেয়ার পুরো দায়িত্ব এসে পড়ে তার কাঁধে। দারুণ ব্যাটিংয়ে সেটা ভালোভাবেই পালন করেছেন ডানহাতি এই ব্যাটার। সামর্থ্য সিংয়ে লেগ স্টাম্পের ওপর করা ডেলিভারিতে পুল করে ছক্কা মাত্র ৩৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন রিশাদ। শেষ পর্যন্ত ১১ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৪ বলে ৮৭ রানের ইনিংস খেলে দলের রান ৩০০ পার করান তিনি। ৪৯.৫ ওভারে ৩৩৪ রান করে অলআউট হয় বাংলাদেশ।

নিউজিল্যান্ড একাদশের পক্ষে সামার্থ সিং ৪ উইকেট নেন। ২ টি করে শিকার জেমস হার্টশর্ন ও জয়ি ফিল্ডের। ১ টি করে উইকেট পান নিকিত পেরেরা ও জ্যারড ম্যাকে।

জবাব দিতে নেমে নিউজিল্যান্ড একাদশ ৫.১ ওভারে ৩২ রান তুলতেই ২ উইকেট হারিয়ে বসে। ১৬.৪ ওভারে ৪র্থ উইকেট যখন হারায়, দলের রান তখন ৮০। ৮০ রানে ৪ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড একাদশকে টেনে তোলে অধিনায়ক ভারত পোপলি ও স্বন্দ্বীপ প্যাটেলের জুটি। ৫ম উইকেটে তাঁরা দুজন যোগ করেন ১৫৬ রান।

ভারত পোপলি আক্ষেপে পোড়েন ৮ রানের। দারুণ খেলতে থাকা ভারত ৯০ বলে ১৩ চারে ৯২ রান করে আফিফ হোসেনের বলে বোল্ড হন। আফিফ ফেরান টাইগারদের জন্য হুমকি হয়ে ওঠা আরেক ব্যাটার স্বন্দ্বীপ প্যাটেলকেও। ৭৭ বলে ১১ চার ও ২ ছয়ে ৮৯ রান করেন তিনি। এই দু’জনের বিদায়ের পর জয়ের কক্ষপথ থেকে ছিটকে যায় নিউজিল্যান্ড একাদশ। শেষমেশ ৪৯.২ ওভারে ৩০৮ রানে অলআউট হয় তারা। বাংলাদেশ ম্যাচ জেতে ২৬ রানের ব্যবধানে।
ক্রীড়া ডেস্ক,বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: খন্দকার সোহাগ হাছান

সহ বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান
সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা প্রগতি স্বরণী বাড্ডা ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com